Menu

হাজারো অভিযোগ ড. কামালের বিরুদ্ধে, ভাঙছে গণফোরাম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

গণফোরামের শীর্ষ নেতাদের দ্বারাই লিখিত অভিযোগ জমা পড়লো বিশিষ্ট আইনজীবী ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে। দলের গঠনতন্ত্রবিরোধী কর্মকাণ্ড, ব্যক্তিস্বার্থে অগণতান্ত্রিক ও স্বেচ্ছাচারী কায়দায় দল পরিচালনার অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়া দলের নীতি, আদর্শ, লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য বিসর্জন দিয়ে বিএনপি-জামায়াতসহ স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির সঙ্গে ঐক্য করার অভিযোগ আনা হয়েছে ড. কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে। ক্ষমতা নাকি অর্থ- কিসের লোভে এই প্রবীণ রাজনীতিবিদ একের পর এক নিয়ে যাচ্ছেন ভুল সিদ্ধান্ত, সেটি এখন খোদ গণফোরাম নেতাদেরই প্রশ্ন।

জানা গেছে, ড. কামাল হোসেনের উদ্দেশে গত ১২ অক্টোবর দুই পৃষ্ঠার চিঠি দেন গণফোরামের ছয় শীর্ষ নেতা। এতে ডিসেম্বরের মধ্যে বৃহত্তর কর্মীসভা (কনভেনশন) আহ্বান করে গণফোরামে গঠণতন্ত্রের ধারা এবং আদর্শ সমুন্নত রাখার দাবি জানিয়েছেন। একই সঙ্গে তারা ২৬ এপ্রিল মহানগর নাট্যমঞ্চে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় কাউন্সিল শেষে গঠিত কমিটিকে ‘অগণতান্ত্রিক এবং অনৈতিকভাবে গঠিত’ দাবি করেন। তারা দ্রুত এ কমিটি ভেঙে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। অন্যথায় তারা ভিন্ন পথ দেখবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছেন।

নেতারা হলেন- দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মফিজুল ইসলাম খান কামাল, জামাল উদ্দিন আহমেদ, অ্যাডভোকেট এসএম আলতাফ হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার সিরাজুল হক এবং স্থায়ী কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. এ এ মাহমুদ। ছয় শীর্ষ নেতাই গণফোরামের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য এবং প্রথম থেকেই ড. কামাল হোসেনের রাজনৈতিক সঙ্গী।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মফিজুল ইসলাম খান কামাল বলেন, ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে আমরা গণফোরাম প্রতিষ্ঠা করেছিলাম। এ দল আমাদের হাতে গড়া। দলটির ক্ষতি হোক আমরা তা চাই না। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য- যে লক্ষ্য, নীতি, আদর্শ এবং উদ্দেশ্য নিয়ে গণফোরামের জন্ম হয়েছিল, দলটি এখন সে জায়গায় নেই। ড. কামাল হোসেনসহ কয়েকজন সুবিধাভোগী নেতা গণফোরামকে বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গী বানিয়ে ফেলেছেন। তিনি (ড. কামাল) যেভাবে চলছেন তাতে আমরা আর ভরসা করতে পারছি না।’

সূত্র জানায়, ছয় নেতা তাদের চিঠিতে বলেন- ‘দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়িত দ্বিদলীয় রূগ্ন রাজনীতির বিরুদ্ধে নীতিনিষ্ঠ অর্থবহ মূল ধারার রাজনীতি প্রতিষ্ঠার স্লোগান দিয়ে ১৯৯৩ সালে গণফোরাম রাজনৈতিক দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। আমাদের ঘোষণা ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বৈষম্য মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। ২০১১ সালের ১৯ মার্চ অনুষ্ঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় গৃহীত সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্টেও ‘দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়িত দ্বিদলীয় (দ্বি-জোট) রূগ্ন রাজনীতির বিরুদ্ধে নীতিনিষ্ঠ অর্থবহ পরিবর্তনের রাজনীতি গড়ে তোলার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু গণফোরাম এখন আর সেই জায়গায় নেই।’

Flag Counter

February 2021
M T W T F S S
« Jan    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728