Menu

শিবগঞ্জের মনাকষা গণহত্যা দিবস: কোন কর্মসূচি গ্রহণ করেনি স্থানীয় নেতা-সাংসদ

আজ ৭ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা গণহত্যা দিবস। দিবসটি উপলক্ষে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, আওয়ামীলীগ নেতা ও সাংসদ নেতা কোন কর্মসূচি করেননি। এমন ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা শহীদ মুসলিম উদ্দিনের সন্তান বদিউর রহমান বুদ্ধ।

তিনি বলেন, আমি বড়ই হতভাগ্য। ১৯৭১ সাল থেকে শুধু হারিয়ে যাচ্ছি। পাইনি কিছু। কারণ হলো ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে আমার আত্মীয়-স্বজনরা মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহন করার দায়ে যুদ্ধের সময় ৭ অক্টোবর আমার পিতা শহীদ মুসলিম উদ্দিন, আমার ৫ জন চাচাসহ খড়িয়াল, সিংনগর, হাউসনগর গ্রামের ১৩জন নিরীহ মানুষ দেশীয় রাজাকারদের সহায়তায় পাক বাহিনী ধরে নিয়ে আসে। তারপর মনাকষা হুমায়ূন রেজা উচ্চ বিদ্যালয়ের পিছনে গুলি করে হত্যা করে এক রাজাকারের জমিতে পুঁতে ফেলে। এঘটনায় বাংলাদেশে সর্বপ্রথম আমি বাদী হয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলা করি। কিন্তু অত্যন্ত দু:খের বিষয় আজ পর্যন্ত বিচার পাইনি। এমনকি এ দিন উপলক্ষে শহীদের উদ্দেশ্যে স্বাধীনতার পর থেকে আজ পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। হয়নি একটু মিলাদ মাহফিলও। অথচ এ মনাকষাতে বর্তমান সংসদ সদস্যসহ বড় বড় আওয়ামীলীগ নেতার জন্ম।এ দিনটি আসলেই কান্না ছাড়া আমার আর কোন সম্বল আমার নেই। আগেব তাড়িত হয়ে কান্না জড়িত কণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন ৭১সালের পাকবাহিনীর হাতে শহীদ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নে পারচৌকা গ্রামের মুসলিম উদ্দিনে ছেলে বদিউর রহমান বুদ্ধু। তিনি আরো বলেন, রাজাকাররা এখানেই ক্ষান্ত হয়নি। পরবর্তীতে রাজাকাররা আমাকে একাধিক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে চরম হয়রানীও করেছে।

দিনটি উপলক্ষে কেন কোন কর্মসূচী নেয়া হয়নি, এমন প্রশ্নের উত্তরে মনাকষা ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার শ্রী প্রভাত সিংহ বলেন, সচেতনার অভাব ও স্বাধীনতা পক্ষের ও স্থানীয় আওয়ামীগ নেতাদের কোন সহযোগিতা না পাওয়ায় আমাদের পক্ষ থেকে কোন কর্মসূচী নেয়া হয় না। জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আলহাজ মোয়াজ্জেম হোসেন মুন্টু বলেন, দু:খ জনক হলেও সত্য যে,মনাকষার গণহত্যা দিবস সম্পর্কে আমাদের শহীদ পরিবার, মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় আওয়ামীলীগের কোন গুরুত্ব নেই। অথচ এ ১৩জন একমাত্র মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের ও মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মীয় হওয়ার কারনে নির্মম হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়েছিলেন।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও শহীদ মুসলিম উদ্দিনের নাতি অধ্যক্ষ সারওয়ার জাহান শেরফান বলেন, উদ্যোগ ও চর্চার অভাবে দিনটি উপেক্ষিত থেকে যায়। নিজেকে ব্যর্থ স্বীকার করে বলেন, ৭১এর স্মৃতি রক্ষার্থে এ দিবসটি গুরুত্ব দেয়া অনিস্বীকার্য এবং পরবর্তীতে অবশ্যই চেষ্টা করবো।

জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও মনাকষা ইউপি চেয়ারম্যান মির্জা শাহাদাৎ হোসেন খুররম বলেন, কোন প্রচার-প্রচারণা না থাকায় দিনটি উপেক্ষিত থেকে যাচ্ছে। শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা না করার অভিযোগটি অস্বীকার করে তিনি বলেন, তারা কোনদিনই এদিনটি উপলক্ষে কোন সহযোগিতা চাওয়াতো দূরের কথা কোন কথাই বলেনি।

জেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা তোহিদুল আলম টিয়া বলেন, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাদের নেতৃত্বদানে অবহেলা ও মুক্তিযোদ্ধাদের উদাসীনাই দিনটি উপেক্ষিত থাকার মূল কারন। কিন্তু দিনটি উপলক্ষে কর্মসূচী নেয়া অপরিহার্য।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ডা: সামিল উদ্দিন আহমদ শিমুল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বলেন, ৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে এদের অবদান অনিস্বীকার্য। তবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে শিবগঞ্জে আকস্মিক বন্যায় পানি বন্দী ও ক্ষতিগ্রস্থদের সেবায় ব্যস্ত থাকার কারনে কর্মসূচী নেয়া হয়নি। তবে পরবর্তীতে আমি নিজেই উদ্যোগ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে দিনটির যথাযথ মর্যদা দেয়া হবে।

Flag Counter

April 2021
M T W T F S S
« Feb    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930