Menu

শিবগঞ্জে হত্যা মামলার বাদীর লোকজন কর্তৃক আসামীদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের মামলা করায় এবার জমির ফসল ও গাছপালা লুটপাট

বিজয় নিউজ বিডি, ২৩ ডিসেম্বর, উপজেলা প্রতিনিধি, শিবগঞ্জ,(চাঁপাইনবাবগঞ্জ ) :

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জে একটি হত্যা মামলার বাদী পক্ষের লোকজন কর্র্তৃক আসামীদের বাড়ি- ঘরে ভাংচুর চালিয়ে দরজা জানালা,গবাদী পশুসহ যাবতীয় জিনিসপত্র লুট-পাট করে নিয়ে যাওয়ার পরিপেক্ষিতে মামলা করায় এবার বাদীর মাঠের ফসল ও গাছপালা সবই লুটপাট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।Lut-pat
স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিক ঘটনা স্থল উপজেলার দুর্লভপুর ইউপির ডাকাতপাড়া গ্রামে গিয়ে এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, গত ১৭ নভেম্বর ডাকাতপাড়া গ্রামের পাশে ফসলের মাঠে মৃত ফিরোজের ছেলে মুনসুরের ফসলের জমিতে একই গ্রামের মৃত মোশারফের ছেলে টুটুল এর ১ টি ছাগল মৃত অবস্থায পড়ে ছিল। Lut-pat (2)খবর পেয়ে টুটুল মুনসুরের ফসলের ক্ষেত থেকে মুনসুরের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ছাগলের বর্তমান নায্য দাম দাবী করলে মুনসুর এবং টুটুলের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মুনসুর উত্তেজিত হইয়া টুটুলকে লাঠি দিয়ে আঘাত করতে গেলে টুটুল পালানো অবস্থায় মুনসুরেই একটি কাঠের বালট হাতে নিয়ে মুনসুরের মাথায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই মুনসুর মারা যায়। এই ঘটনায় মুনসুরের ভাই আনসুর বাদী হয়ে গত ১৯ নভেম্বর শিবগঞ্জ থানায় নারীও পুরুষসহ মোট ১৩ জনকে আসামী করে ১ টি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৩৮। উক্ত হত্যা মামলা দায়েরLut-pat (1) করার পর আসামী পক্ষের লোকজন সবাই বাড়ি-ঘর সবকিছু ফেলে এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। এই সুযোগে গত ২৪ নভেম্বর রাত প্রায় ৯ টার দিকে বাদী মোহাঃ আনসুর রহমান এর নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি দল এসে কারো কিছু বুঝে উঠার আগেই আসামীদের পাশা পাশি দুইটি ইটের তৈরী বাড়িতে আর্তকিত ভাবে ভাংচুর ও লুটপাট শুরু করে দেয়। Lut-pat (3)লুটপাট কারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, মামলার বাদী মোহাঃ আনসুর রহমান, পার্শ্ববর্তী গ্রাম ঘুঘুডাঙ্গার ফজলুর ৩ ছেলে আলফাজ, মাহততাব ও তোহরুল এবং বাদবাকী সবাই ডাকাতপাড়ার যেমন, মৃত সোলেমানের ৩ ছেলে যথাক্রমে শফিকুর , মানিক ও শরিফ, বিশু ঘোষের ছেলে তাহের , আজাদের ছেলে বাবু, মৃত এরসাদের ছেলে মজিবুর , লুৎফলের ছেলে আকতারুল , মৃত আফসারের ২ ছেলে এসরাইল ও সায়েদ, মৃত আজরুলের ছেলে আরিফ, মোরফুলের ছেলে রুহুল ও নজরুলের ছেলে সেলিমসহ আরো কয়েকজন মিলে আসামীদের দুইটি বাড়ির ৭ টি শুবার রুমসহ ১৫ টি রুমে একযোগে ভাংচুর শুরু করে ।Lut-pat (4) প্রথমেই তারা সমস্ত রুমের ইট ভেঙ্গে দরজা ও জানালা খুলে নেয়। তারপর তারা ঘরের ভিতরে থাকা খাট,চৌকি,বাক্স সহ সকল প্রকার জিনিসপত্র লুটপাট করে নিয়ে যেতে থাকে। দুইটি গোয়ালঘর থেকে ৩ টা বড় বাছুর, ২ টা গাভী ও ২ টা ছোট বাছুরসহ মোট ৭ টি গরু ও ৫টি বড় ছাগল এবং বাড়ির পিছন সাইডে ৩ পল্ট্রি র্ফাম থেকে ৭০০টি পল্ট্রি ও একটি টিউবওয়েল লুট করে নিয়ে চলে যায়। সব শেষে তারা বাড়ির গলিতে একটি সার-বিষের দোকান থেকে অনুমানিক ৯০ হাজার টাকার সার-বিষ লুটপাট করে।Lut-pat (5) তারা এই লুটপাটের তান্ডব প্রায ৫ থেকে ৬ ঘন্টা ধরে চালায়। উক্ত লুটপাটের ঘটনায় মুত হুমায়নের স্ত্রী মোসাঃ নুরনাহার বাদী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ কোটে একটি মামলা দায়ের করেন। যার স্বারক নং-১২০, মামলা নং ৩৮২,তারিখ ১০/১২/২০১৫ ইং। উক্ত মামলা করার পর উক্ত আসামীরা প্রকাশ্যেই মামলার বাদীর সমস্ত জমির ফসল ও বিভিন্ন ধরনের গাছপালা কেটে নিয়ে গেছে।Lut-pat (6) কিন্তু হত্যা মামলায় আসামী করে দেবার ভয়ে এলাকার কেউ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পাইনি। অবশ্য সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আশপাশের লোকজনের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কেউ বাদীর ভয়ে সবার সামনে কোন কথা বলতে চান নি। তবে সাংবাদিকরা যখন একে একে আশপাশের বাড়ির ভিতরে গিয়ে গোপনে জানতে চাইলো তখন সকলেই কিভাবে আসামীদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছিল এবং ফসলও গাছপালা লুট করেছে, এবং কারা এতে জড়িত ছিল এবং আছে তাদের সকলের নাম ঠিকানা বলে দিলেন । বর্তমানে একদিকে হত্যা মামলা ও অপর দিকে আসামীদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করার পরও আবার মাঠের ফসল ,গাছপালা লুটপাট করায় এবং বাদিকে সহ তার পক্ষে কেউ কথা বললে তাকেও বিভিন্ন ভাবে হুমকি ও ভয়ভিতী দেখিয়ে যাচ্ছে আনসুর ও তার লোকজন। আনসুরও তার লোকজনের বেপরোয়া চলাফেরা করায় চরম আতংকের মধ্যে বসবাস করছে ঐ এলাকার সম¯ত লোকজন বলে ঐ ডাকাত পাড়া ও ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামের নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক গন্যমান্য ব্যক্তিরা সাংবাদিকদের জানান। Lut-pat (7)
এব্যাপারে হত্যা মামলার বাদী মোহাঃ আনসুরের নিকট ভাংচুর ও লুটপাটের পরে মামলা করার কারণে আবার মাঠের ফসল ও গাছ পালা লুটপাটের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের প্রথমে এড়িয়ে যান। পরে তিনি বলেন, বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট এবং পরে ফসল ও গাছপালা লুটপাটের ঘটনাটি আমি শুনেছি তবে আমি এসব করিনি। কে করেছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের গ্রামের লোকজন এসব করেছে বলে আমি শুনেছি।Lut-pat (8)
এ ব্যাপারে দুর্লভপুর ইউপির চেয়ারম্যান জনাব আবু আহমদ নজমুল কবির মুক্তা সাংবাদিকদের জানান, বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনাটি শতভাগ সত্য। আসামীদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের বিষয়টি আমি নিজে গিয়ে দেখে এসেছিলাম। আমি নিজ চোখে এসব দেখে হতবাক হয়ে গেছিলাম যে, এই ধরণের ন্যাক্কারজনক ঘটনা এখনও কেউ ঘটাতে পারে ? এই ধরণের ঘটনা আমরা ৭১ সালে রাজাকারে ঘটিয়েছে সেটা দেখেছিলাম। আর তার পর ডাকাতপাড়া গ্রামে দেখেছি। এখন আবার তারা এ গুলো করে শান্তি পাইনি। তাই তারা মাঠের ফসল , গাছপালা সব কিছু লুটপাট করে নিয়ে গেছে। তবে এব্যাপারে শুনেছি কোটে মামলা হয়েছে। পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে এখন ব্যবস্থা নিবে বলে আমি আশা করি।
এব্Lut-pat (9)যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস,আই সহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আসামীদের বাড়ি ঘর ভাংচুর বা লুটপাটের খবর আমি মানুষ মুখে জানতে পারি এবং এও শুনেছি যে, এব্যাপারে কোটে মামলা করেছেন নুরনাহার বেগম । আমরা অবশ্যই এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নিব।Lut-pat (10)
এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম এম ময়নুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, আসামীদের বাড়ি ঘর ভাংচুর বা লুটপাটের ঘটনায় মামলা হয়েছে এব্যাপারে অবশ্যই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
Lut-pat (11)এব্যাপারে আসামেিদর আত্মীয়স্বজন সুত্রে জানা যায় যে, হত্যা মামলার পর বাদী আনসুর রহমান এলাকায় প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়ে রেখেছে যে, আসামীদের পক্ষে কেউ কোন কথা বা কাজ করলে তাকেও মামলায় ঢুকিয়ে দিব। যার কারণে ভাংচুর ও লুটপাটের পর এবার মাঠের ফসল, গাছপালা লুট করে নিয়ে গেলেও এলাকার লোকজন কেউ তাদেরকে কিছু বলতে পারছেনা।

Flag Counter

April 2021
M T W T F S S
« Feb    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930