Menu

নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প পরিদর্শনে আসছেন মৎস্য প্রতিমন্ত্রী

ff
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সবচেয়ে বড় ও আধুনিক পদ্ধতিতে এবং বানিজ্যিকভাবে গড়ে তোলা “নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প” পরিদর্শনে আসছেন মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নয়াগোলা বুলনপুর নবাব অটো রাইস এণ্ড ফিড মিলস্ (প্রাঃ) লিমিটেডের অভ্যন্তরে গড়ে উঠেছে এই ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’। খামারের প্রায় ৫০ একর জমির উপর ৩৬টি পুকুরে রয়েছে রুই, কাতলা, মৃগেল, সিলভার, ব্রিগেড, মাগুর, পাঙ্গাস, গুলসা মনসেক, পাবদা ও মনোসেক্স প্রজাতির মাছ। এসব পুকুরে প্রায় ২ হাজার মেট্রিক টন মাছ উৎপাদন প্রক্রিয়ায় রয়েছে। ভিয়েতনাম সফরে গিয়ে সেখানে মাছের খামার পরিদর্শণে দিয়ে এই মাছের খামার গড়ে তোলার পরিকল্পনা করেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আকবর হোসেন। ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’ এর ¯^ত্বাধিকারী মোঃ আকবর হোসেন জানান, ব্যবসায়ীক সফরে ভিয়েতনাম গিয়ে সেখানে মাছের খামার পরিদর্শন করে এই মাছের খামার গড়ে তোলার পরিকল্পনা আসে। খামারের প্রায় ৫০ একর জমির উপর ৩৬টি পুকুরে রয়েছে রুই, কাতলা, মৃগেল, সিলভার, ব্রিগেড, মাগুর, পাঙ্গাস, গুলসা মনসেক, পাবদা ও মনোসেক্স প্রজাতির মাছ। এসব পুকুরে প্রায় ২ হাজার মেট্রিক টন মাছ উৎপাদন প্রক্রিয়ায় রয়েছে। জেলায় এই প্রথম গড়ে ওঠা পুকুর পাড়ে রয়েছে ভিয়েতনানের ৫’শ টি ডাবের গাছ, বারি মাল্টার গাছ ৫’শ টি এবং ড্রাগনের গাছ রয়েছে ৬’শ টি। ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’ এর উৎপাদিত মাছ চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া ও ঢাকায় বিক্রি করা হয়। সরকারীভাবে সহায়তা পেলে ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’ এর মাছ বিদেশেও রপ্তানী করার পরিকল্পনা রয়েছে। তিনি জানান, কৃষি বা মৎস্য খামারের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা প্রয়োজন। ¯^ল্প সুদে ঋণ দেয়া হলেও খামারীদের বিশেষ উপকারে আসবে। কিন্তু স্থানীয় ব্যাংকগুলো থেকে খামারীদের এরকম কোন সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয় না বললেই চলে। আগামীতে খামারীদের সরকার ও বানিজ্যিক ব্যাংকগুলো এগিয়ে আসবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন ব্যবসায়ী আকবর হোসেন। এর আগে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চকপুস্তুম হাজী আব্দুল খাবির এর ভেড়া খামার পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে।

Flag Counter

October 2019
M T W T F S S
« Sep    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031